কমল চক্রবর্তী:-

শিব্বির আহমদ ওসমান যিনি একাধারে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, দৈনিক আজকের কর্ণফুলী পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস এন্ড এনভায়রনমেন্ট ফাউন্ডেশন এর সহ-সভাপতি, চট্টগ্রাম নাগরিক অধিকার বাস্তবায়ন পরিষদ এর সহ-সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক রাবার কেমিক্যাল প্লাস্টিক শিল্প শ্রমিক ইউনিয়ন। যিনি আপাদমস্তক একজন নিরাট ভদ্রলোক ও মানবিক মানুষ।অনেকটাই নীরবে কাজ করে যাচ্ছেন মানুষের কল্যানে।বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন।বাড়িয়েছেন সাহায্যের হাত।অসহায় মানুষের মাঝে খাবার বিলাচ্ছেন নিজ হাতে।ইতিমধ্যে কয়েকদফা তৈরি খাবারসহ ইফতার সামগ্রী বিতরণ করেছেন।সেইসাথে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ফোরামের অসচ্ছল সদস্যদের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতরণ করেছেন। সাধ্যমত চেষ্টা করছেন সংগঠনের অসচ্ছল সদস্যদের পাশে দাঁড়ানোর।

কে এই শিব্বির আহমদ ওসমানঃ
আমাদের সমাজে এমন কিছু মানুষ আছে যারা নিজের পরিশ্রম ও মেধাশক্তিকে কাজে লাগিয়ে সমাজে প্রতিষ্টিত হয়েছে।এমন কিছু নিবেদিত প্রাণ মানুষ আছে যারা সমাজের কল্যানে নিজেদের সম্পৃক্ত করেছে। যারা মানুষের জন্য কল্যাণকর কিছু করতে পেরে ধন্য হয়।তাদের চাওয়া পাওয়া তেমন কিছু থাকে না। মানুষের ভালোবাসার মাঝে শান্তি খোঁজে ।তারা শতাব্দীর পর শতাব্দী পেরিয়ে গেলেও বেঁচে থাকে মানুষের অন্তরে।এরকম অনেক মানুষ সমাজে আছে যারা নিরবে নিবৃত্বে থেকে মানুষের জন্য কাজ করে চলেছেন।তেমনি এক মহানুভব প্রচার বিমুখ মানুষ শিব্বির আহমদ ওসমান।যিনি মানুষের কল্যানে কাজ করার ব্রত নিয়েছেন। সদা হাস্যজ্জল ও সদালাপী মানুষ শিব্বির আহমদ ওসমান। যিনি মনে করেন ভোগ নয় ত্যাগেই প্রকৃত সুখ।

শিব্বির আহমদ ওসমান এর জন্ম ও পারিবারিক পরিচয়ঃ
শিব্বির আহমদ ওসমান লক্ষীপুর জেলার ভবানীগঞ্জের মধ্যবিত্ব এক মুসলিম পরিবারে ১৯৭৬ সালে তিনি জন্মগ্রহন করেন। তাহার পিতার নাম প্রয়াত মাওলানা কারী মুজিবুল্লাহ, মাতা মোছাম্মদ বদরের নেছা।পিতা মাওলানা কারী মুজিবুল্লাহ দেশের সুনামধন্য সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তি ছিলেন। তাঁহার মৃত্যুতে লক্ষীপুর সহ সারা দেশে শোকের ছায়া নেমে এসেছিল।এমন এক পরিবারের সন্তান এই শিব্বির আহমদ ওসমান। পারিবারিক শিক্ষা ও চেতনায় বড় হয়ে উঠেছেন। তিনি একজন ধার্মিকও বটে।
শিব্বির আহমদ ওসমান এর কর্মজীবনঃ
শিব্বির আহমদ ওসমান পিতার মত যোগ্য ব্যক্তি হতে না পারলেও পিতার আদর্শকে ধারণ ও লালন করেন সবসময় ।তিনি ১৯৯১ সালে ১লা জানুয়ারী কর্সংস্থানের জন্য চট্টগ্রাম নগরীতে আসেন এবং একটি প্রাইভেট কোম্পানির চাকরিতে যোগ দেন। দীর্ঘদিন বিভিন্ন স্থানে চাকরি করার পর পরিবহন সেক্টরের কাজে যোগ দেন।বর্তমানে তিনি “দি এস আর ট্রান্সপোর্ট সার্ভিস”এর মালিক।বিগত ১৬ বছর ধরে তিনি এ পেশায় নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন।আর পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে।অভিজ্ঞতার আলোকে বর্তমানে তিনি পরিবহন সেক্টরের সফল একজন ব্যবসায়ী।তিনি তার ব্যবসার পাশাপাশি চালিয়ে যাচ্ছেন পত্রিকা প্রকাশনা ও সম্পাদনার দায়িত্ব।নিজেকে যুক্ত করেছেন মানবাধিকার সংগঠনসহ বেশ কিছু সামাজিক সংগঠনের সাথে।

ব্যাক্তি হিসাবে শিব্বির আহমদ ওসমানঃ
ব্যাক্তি হিসাবে শিব্বির আহমদ ওসমান অত্যন্ত সহজ সরল সুন্দর মনের মানুষ। শিব্বির আহমদ সাংসারিক জীবনে দু সন্তানের জনক। এক ছেলে ও এক মেয়ে দুজনই অধ্যায়নরত।পরিবার নিয়ে থাকেন নগরীর ২৯ নং পশ্চিম মাদারবাড়ী ওয়ার্ডের ১ নং রোডের একটি বাসায়।কদমতলীস্থ তার পরিবহন ট্রান্সপোর্টের ব্যবসায়ীক অফিসটা থাকে সব সময় লোকজনে ভরা।তিনি সবার সাথে মিলেমিশে থাকতে তিনি ভালবাসেন।আপাদমস্তক ভদ্রলোক শিব্বির আহমদ তিনি তার স্বল্প জীবনে যা টুকু আয় তা দিয়ে মানবতার কল্যাণে অনেক কাজ করে চলেছেন। তিনি তার ব্যক্তিগত অথ্যায়নে অনেক গরিব মানুষকে চিকিৎসা করিয়েছেন। অনেক গরিব লোককে আর্থিক সহায়তা করেছেন। মানুষের দুঃখ কষ্ট সহ্য করতে পারেন না সদালাপী এই মানুষটি। তিনি তার সামর্থ্য অনুযায়ী মানুষকে সহযোগিতা করেন। বর্তমানে তার আর্থিক অবস্থা ভালো না চললেও চেষ্টা করে যাচ্ছেন মানুষের জন্য কিছু করতে।

প্রচার বিমুখ শিব্বির আহমদ ওসমানঃ
শিব্বির আহমদ ওসমান একজন প্রচার বিমুখ মানুষ ।তিনি তার মানবিক কাজ গুলো করে যাচ্ছেন নিরবে।মানবতাবাদী মানুষ শিব্বির আহমদে মনে করেন টাকা পয়সা আজ আছে তো কাল নেই। তাই যতক্ষন আল্লাহ আমার কাছে তার আমানত রাখছে ততোক্ষন ভাল কিছু করার চেষ্টা করি। তিনি মানুষের কল্যানে কিছু করতে পারলে মনে শান্তি খুজে পান।

শিব্বির আহমদ ওসমান এর কাজের স্বীকৃতিঃ
শিব্বির আহমদ ওসমান তার নানামুখী ভাল কাজের পৃষ্টপোষকতার জন্য বিভিন্ন সামাজিক ও সেচ্ছাসেবী সংগঠন থেকে মাদার তেরেসা সম্মাননাসহ অনেক সম্মাননা লাভ করেন।তার কাছে সফলতার ইতিহাস জানতে চাইলে তিনি বলেন, দীর্ঘ চিন্তা ও চেষ্টার ফসল আমার এই বর্তমান অবস্থান।এই সফলতাকে আমি সফলতা বলে মনে করিনা।আমি মনে করি এটা আমার কাজের স্বীকৃতি মাত্র।সফলতা তখনই বলব যখন মানুষের জন্য বেশী কিছু করতে পারব।

একজন মানবিক মানুষ শিব্বির আহমদ ওসমানঃ
শিব্বির আহমদ ওসমান পুরোদস্তর একজন মানবিক মানুষ। তার মন কাঁদে যখন দেখেন অনেক মানুষ অনাহারে অর্ধাহারে দিন কাটাচ্ছে।মানুষ শিক্ষা ও চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।তিনি মনে করেন বর্তমান সময়ে মধ্যবিত্বরাই বেশি কষ্টে আছে। যারা লোক লজ্জায় কাউকে কিছু বলতে পারে না।কারো কাছে কিছু চাইতেও পারেনা। মুখ বুঝে সব কষ্ট সহ্য করছে। ভিতরে চাপা কান্না লুকিয়ে রেখে চলছে।মধ্যবিত্ব মানুষের মুখের মলিন হাসিটা আসলে অন্তরের হাসি নয়, এটি লোক দেখানো ।তাদের সেই হাসির ভিতরে লুখিয়ে আছে অনেক দুঃখ কষ্ট বেদনা আর হাহাকার ।তাদের জন্য সরকারের পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিত। তিনি তার সামথ্য অনুযায়ী মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছেন।

শিব্বির আহমদ ওসমান এর চিন্তা চেতনাঃ
শিব্বির আহমদ ওসমান মনে করেন একজন মধ্যবিত্ব পরিবারের সন্তান হিসেবে এতটুকু আমার চাওয়া পাওয়া ছিলনা। আল্লাহ আমার সততার মুল্যায়ন করেছেন, আমি আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞ। সবার দোয়া ও ভালবাসা নিয়ে যাতে পৃথিবীর এই ক্ষনিকের সময়টুকু পার করতে পারি মহান রাব্বুল আলামিনের কাছে তাই কামনা করছি। আমার স্বপ্ন একটাই মানুষের কল্যানের জন্য কাজ করা। আমি আমার সংগঠনকে প্রাণের চেয়েও ভালোবাসি।তাই যারা আমার সংগঠনের সদস্য তাদের জন্য আমি সবকিছু করতে প্রস্তুত।তিনি চান তার সংগঠনকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যেতে। সাংবাদিকদের কল্যানে এই সংগঠনকে কাজে লাগাতে।সাংবাদিকদের জন্য হয়ে উঠুক একটা আশ্রয়স্থল ভরসার জায়গা । পরিছন্ন ও সুস্থ ধারার সাংবাদিকরা আমাদের সাথে সামিল হোক এমনটাই প্রত্যাশা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here