আহমেদ সাব্বির রোমিও : নাট্য পরিচালনা থেকে করোনা যুদ্ধে এবার একজন করোনা যোদ্ধা হিসাবে নাম লেখালেন শেখ রুনা।
স্বেচ্ছায় করোনা যুদ্ধে যোগদানের তার ইচ্ছের বিষয়টা তিনি ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে লিখেছিলেন এপ্রিল মাসের ১৩ তারিখে। তারপর থেকেই সুযোগের অপেক্ষায় ছিলেন। পরবর্তীতে তার এই স্ট্যাটাসটি নজরে অাসে রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মো: শাহেদের। এপ্রিল মাসের ২০ তারিখে শেখ রুনা অপর একটি স্ট্যাটাসে জানান তিনি, স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে করোনা রুগীদের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করার জন্য রিজেন্ট হাসপাতাল মিরপুর শাখায় তিনি যোগদান করেন।
উল্লেখ্য, পৃথিবীর অনেক দেশের মতোই এখন করোনাভাইরাসে (কভিড-১৯) বিপর্যস্ত বাংলাদেশ। যেই মুহূর্তে কারও করোনা হলে দেশের প্রেক্ষাপটে সাধারণ মানুষ তার নাম গোপন করে রাখার চেষ্টা করা হয়, সেখানে নাট্যনির্মাতা, প্রযোজক শেখ রুনা নিজের ইচ্ছায় করোনা রোগীদের সেবাদানে একজন স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে এগিয়ে এলেন। যা কিনা সত্যিই একটি অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত।
শেখ রুনা রাজধানীর মিরপুর-১২ নম্বরে অবস্থিত রিজেন্ট হাসপাতালে একজন স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করছেন বেশ কয়েকদিন যাবৎ, যা এই মুহূর্তে ভীষণ চ্যালেঞ্জিংই বলা চলে। শেখ রুনা বলেন, ‘আমার বাবা-মা খুব দুশ্চিন্তা করছেন। কিন্তু তাদের আমি বলেছি যে, মুক্তিযুদ্ধের সময় অনেক বাবা-মায়ের সন্তানই যুদ্ধে গিয়ে শহীদ হয়েছেন, দেশের জন্য জীবন দিয়েছেন, আমিও না হয় করোনার মতো মহামারীতে মানুষের জন্য নিজেকে নিবেদিত করলাম।

যদি বেঁচে যাই ইনশাআল্লাহ সবার সঙ্গে দেখা হবে। দেশব্যাপী করোনা মহামারী আকার ধারণ করেছে তাতে মানুষের জন্য সম্মুখে এসে কাজ করছি। মানুষের জন্যই নিজের জীবনকে উৎসর্গ করে যেতে চাই। ’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here