শেখ মিলন:-

বেতন বোনাসের দাবীতে মহাসড়ক অববোধ, সংবাদ কর্মিসহ আহত অর্ধশত গাজীপুরে সদর বাঘের বাজার এলাকায় ইভেন্স গ্রুপের তিনটি পোশাক কারখানায় চলতি মাসের বেতন ও ঈদ বোনাসের দাবীতে বিক্ষোভ ও মহাসড়ক অবরোধ করে শ্রমিকরা এসময় পুলিশের লাঠিচার্জ ও কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপে অর্ধশত আহত হয় বলে জানিয়েছেন বিক্ষোভ কারী শ্রমিকরা। মঙ্গলবার (১৯ মে) দুপুর ১টা থেকে ইভেন্স গ্রুপের তিনটি কারখানার প্রায ৫ হাজার শ্রমিক বিক্ষোভে অংশ নেয়। এসময় শ্রমিকদের ওপর পুলিশ লাঠিচার্জ ও কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয় শ্রমিকদের। কিছুক্ষণ পর শ্রমিকরা আবার জড়ো হয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে। এতে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। প্রায তিন ঘণ্টা চেষ্টার পর সন্ধ্যা সাড়ে পাঁচটার দিকে লাঠিচার্জ করে শ্রমিকদের মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দিতে সক্ষম হয। এ সময় সংবাদ সংগ্রহ করতে আসা বর্তমান কথা পত্রিকার গাজীপুর জেলা প্রতিনিধি আবু জাফর নামের এক সংবাদকর্মীকে মারধর করে এতে সে সহ প্রায় অর্ধশত শ্রমিক গুরুতর আহত হয়। বর্তমান কথা পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি আবু জাফর জানিয়েছেন, সংবাদ সংগ্রহ করার সময় আমাকে এলোপাথাড়ি মারপিট করে আমার পরিচয় ও আইডি কার্ড দেখানোর পরেও জযদেবপুর থানার কনষ্টবল আনোয়ার আমাকে লাঠিপেটা করে এতে আমি গুরুতর আহত হই। পরে সংবাদকর্মীরা এ বিষয়ে জয়দেবপুর থানার (ওসি) জাবেদুল ইসলামের সাথে কথা বলতে গেলে বাকি পুলিশ সদস্যরা বাধা দিয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে ভয়-ভীতি ও হুমকি দেয়। এ বিষয়ে জয়দেবপুর থানার ওসি জাবেদুল ইসলাম দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, হয়তো তারা চিনতে পারেনি কিছু মনে করবেন না বিষয়টি পরে দেখবো। বিক্ষোভ কারী শ্রমিকরা জানান, ইভেন্স গ্রুপের পক্ষে শ্রমিকদের চলতি মে মাসের আংশিক বেতন ও ঈদ বোনাস না দেয়ার ঘোষণা দেয় কর্তৃপক্ষ। পরে মঙ্গলবার দুপুর ১টার পর উৎপাদন বন্ধ করে দিলে ওই গ্রুপের তিনটি কারখানার কমপক্ষে ৫ হাজার শ্রমিক বিক্ষোভ করে কারখানার বাইরে চলে যায়। একপর্যায়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে। দুপুর আড়াইটার দিকে বিক্ষোভকারী শ্রমিকদের ওপর পুলিশ লাঠিচার্জ ও কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে। এতে কমপক্ষে অর্ধশত নারী শ্রমিক সহ অন্যান শ্রমিক আহত হয়। তারা ব্যাক্তিগতভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা নিযেছে। এর আগে সকাল দশটার দিকে এলিগ্যান্ট এবং ফার সিরামিকস এর শ্রমিকরা ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়ক অবরোধ করার চেষ্টা করলে লাঠিচার্জ করে তাদেরকে মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেয় ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here